ইন্টারনেট ব্যাংকিং কিভাবে নিরাপদ রাখবেন

ইন্টারনেট ব্যাংকিং সেবা গ্রহণ করার জন্য গ্রাহককে নিরাপত্তার বিষয়গুলো মাথায় রাখতে হয়। তা না হলে গ্রাহককে আর্থিক ক্ষতির সম্মুখীন হতে হয়। ইন্টারনেট ব্যাংকিং নিরাপদ রাখার জন্য গ্রাহকের নিম্নোক্ত পদক্ষেপগুলি নেওয়া জরুরি –

কম্পিউটার টিপস-
১। কম্পিউটারের এন্টিভাইরাস সবসময় আপডেট রাখতে হয়।
১। কম্পিউটারের অপারেটিং সিস্টেম আপডেট থাকতে হয়। সাথে নিরাপত্তা প্যাঁচসমূহ আপডেট থাকতে হয়।
৩। ফায়ারওয়াল চালু রাখতে হয়।

ইন্টারনেট ব্যাংকিং কিভাবে নিরাপদ রাখবেন

৪। যদি কোন কম্পিউটারকে আপনি ঝুঁকিপূর্ণ হিসেবে চিহ্নিত করেন, তাহলে সেই কম্পিউটারে আপনি কখনোই ইন্টারনেট ব্যাংকিং এ প্রবেশ করবেন না।
৫। আপনি যে কম্পিউটার ব্যবহার করে ইন্টারনেট ব্যাংকিং এ প্রবেশ করেন, সেই কম্পিউটারে সব সময় লক করে রাখবেন, যেন আপনি ছাড়া অন্য কেউ প্রবেশ করতে না পারে।
৬। আপনার ব্রাউজারের অটো কমপ্লিট ফাংশনটি বন্ধ করে রাখুন।
৭। ব্রাউজার সবসময় আপডেট রাখুন।

সাধারণ টিপস-
১। কখনোই আপনি আপনার পার্সোনাল তথ্য অন্য কারো সাথে শেয়ার করবেন না।
২। আপনার ব্যাংকের ডকুমেন্টসমূহ যেমন স্টেটমেন্ট, জমা বই, চেক বই নিরাপদ জায়গায় রাখুন।
৩। ব্যাংক একাউন্টের সাথে জড়িত কোন নষ্ট কাগজ ফেলে দেওয়ার সময় সতর্ক থাকুন। যেন সেখানে আপনার পার্সোনাল কোন তথ্য না থাকে, যেটা আপনার আপনার ইন্টারনেট ব্যাংকিংয়ের মাধ্যমে লেনদেনের ঝুঁকিকে অনেকাংশে কমিয়ে আনবে।
৪। আপনি যদি মনে করেন যে, আপনি ডেবিট কার্ড আর ব্যবহার করবেন না, তাহলে সাথে সাথেই সেই ডেবিট কার্ডটি ধ্বংস করে ফেলুন এবং কল সেন্টারে ফোন করে ডেবিট কার্ডটি স্থায়ীভাবে বন্ধ করে দিন।
৫। প্রতিটি ট্রানজেকশনের ক্ষেত্রে সদা সর্বদা খেয়াল রাখুন এবং দেখবেন কোন অস্বাভাবিক লেনদেন হচ্ছে কিনা। কোনো অস্বাভাবিক কিছু পাইলে যত দ্রুত সম্ভব ব্যাংক কর্তৃপক্ষকে জানান।
৬। এটিএম থেকে টাকা উত্তোলনের পর উত্তোলনের রশিদ ছিঁড়েফেঁলুন।
৭। কল সেন্টারের নাম্বার মোবাইলে সেভ করে রাখুন। পারলে মুখস্থ করে রাখুন।

আরো পড়তে পারেন:  ইন্টারনেট ব্যাংকিং এর পাসওয়ার্ড কত বড় হবে

অনলাইন / ইমেইল টিপস-
১। আপনাকে ইমেইলে আপনার পার্সোনাল তথ্য চেয়ে কেউ ইমেইল করলে, সেই ইমেইলের কোন উত্তর প্রদান করবেন না।
২। কারো নাম দিয়ে যদি আপনার কাছে আপনার কোন পাসওয়ার্ড বা অন্য কোন তথ্য কিংবা লেনদেনের তথ্য চাওয়া হয়, তাহলে আপনি কাউকে সেটি প্রদান করবেন না।
৩। সেই ইমেইলগুলো আপনি ওপেন করুন, যেগুলো আপনার পরিচিত লোক পাঠিয়েছেন।
৪। ইমেইলের সাথে যদি কোনো অ্যাটাচমেন্ট থেকে থাকে, তাহলে আপনি নিশ্চিত না হয়ে সেই ইমেইল ডাউনলোড করবেন না।
৫। ইমেইলের সাথে আসা কোন লিংকে ক্লিক করার আগে অবশ্যই চিন্তা করুন।
৬। ইমেইলের নিরাপত্তা সম্পর্কে অবশ্যই পূর্ণ জ্ঞান থাকতে হবে।
৭। ইমেইলের কাজ শেষ হয়ে গেলে অবশ্যই অবশ্যই আপনি সাইন আউট করে বের হয়ে যাবেন।

ইন্টারনেট ব্যাংকিং কিভাবে নিরাপদ রাখবেন।

পাসওয়ার্ড টিপস-
১। শক্তিশালী পাসওয়ার্ড ব্যবহার করুন।
২। এমন কঠিন পাসওয়ার্ড ব্যবহার করুন যাতে কেউ অনুমান করতে না পারে।
৩। পাসওয়ার্ড ব্যবহার করার ক্ষেত্রে সংখ্যা এবং অক্ষর ব্যবহার করুন। অক্ষর ব্যবহার করার সময় ছোট বড় অক্ষর ব্যবহার করুন। অবশ্যই স্পেশাল ক্যারেকটার ব্যবহার করুন।
৪। আপনার পিসি নিরাপদ রাখুন ।
৫। আপনার ডেবিট অথবা ক্রেডিট কার্ড অন্য কারো কাছে হস্তান্তর করবেন না।
৬। ডেবিট অথবা ক্রেডিট কার্ডের উল্টাপাশে পাসওয়ার্ড লিখে রাখবেন না।
৭। পাসওয়ার্ড কারো সাথে শেয়ার করবেন না। মোবাইল ফোন অথবা ইমেইলে তো নয়ই ।
৮। মাঝে মাঝে আপনার স্টেটমেন্ট চেক করুন। যদি কোন গরমিল খুঁজে পান তাহলে ব্যাংক কর্তৃপক্ষকে জানান।
৯। আপনার পিসির এন্টিভাইরাস সবসময় আপডেট রাখুন।

Recommended For You

About the Author: এডমিন