আপনি কী অবসর পরিকল্পনা নিয়ে চিন্তিত

আপনি যদি মনে করেন যে, বর্তমান কর্মস্থল থেকে অবসর গ্রহণের পর জীবন যাপনের জন্য পর্যাপ্ত সঞ্চয় আপনার এখন পর্যন্ত নেই, তাহলে এই লেখাটি আপনার জন্য। অবসর পরিকল্পনার ম্যাধমে সঞ্চয় বৃদ্ধি করার জন্য যে কাজগুলো করবেন তাহলো :

অবসর পরিকল্পনা

বর্তমান কাজের পাশাপাশি সহায়ক হিসেবে ফ্রীলান্স কাজ করুন
আপনি বর্তমানে যে কাজটি করছেন বা যে কাজ থেকে আপনি আয় করছেন, সেই কাজের পাশাপাশি অন্য একটি ফ্রীলান্স কাজ করুন। এখান থেকে আপনার সামান্য কিছু হলেও আয় হবে এবং সেই আয়টি ভবিষ্যতের জন্য রেখে দিন, যেটা আপনার অবসর গ্রহণের পর আপনার জীবন যাপনের জন্য অনেক সহায়ক ভূমিকা পালন করবে। ছোট ছোট সঞ্চয় একদিন অনেক বড় সঞ্চয়ে পরিণত হবে।

অবসর আর্থিক সঞ্চয় পরিকল্পনা বৃদ্ধি করুন
ভবিষ্যতের জন্য বর্তমানে আপনি যে পরিমাণ অর্থ সঞ্চয় করছেন, চেষ্টা করুন তার চেয়ে একটু বেশি পরিমাণে সঞ্চয় করতে। তাহলে একদিকে যেমন আপনার সঞ্চয় বৃদ্ধি পাবে, তেমনি অন্যদিকে অবসর গ্রহণের পর আপনার আর্থিক নিরাপত্তাও অনেক গুণ বেড়ে যাবে। আর্থিক নিরাপত্তা থাকলে আপনার মানুষিক চাপ অনেকাংশে কমে যাবে। অনেক স্বাচ্ছন্দ্যে জীবন-যাপন করতে পারবেন।

খরচ কমান
বর্তমানে আপনি যে পরিমাণে আয় করছেন, সেই আয়ের সাথে সামঞ্জস্য রেখে জীবন-যাপন করুন। কোনভাবেই আয়ের চেয়ে বেশি খরচ করতে যাবেন না। তাহলে দেখবেন আপনা-আপনি আপনার সঞ্চয় বেড়ে যাবে। আয়ের চেয়ে খরচ বেশি করলেই আপনি ঋণের জালে আটকা পরে যাবেন।

আরো পড়তে পারেন:  অতিরিক্ত খরচের হাত থেকে রক্ষা পাওয়ার ৮ টি উপায়

বিনিয়োগ করুন
ভবিষ্যতের কথা চিন্তা করে অল্প অল্প করে সঞ্চয় করতে থাকুন। আপনি যদি প্রতি মাসে ৫ হাজার টাকা সঞ্চয় করেন, তাহলে ১০ বছর পরে সেই সঞ্চয়ের পরিমাণ দাঁড়াবে ১৪ লক্ষ টাকার বেশি। যদি সম্ভব হয় তাহলে আপনি ব্যাংকে বিভিন্ন মেয়াদে ডাবল স্কিম প্রকল্পে বিনিয়োগ করতে পারেন।

ক্রেডিট কার্ডের লোন দূর করুন
বর্তমানে বাংলাদেশে ক্রেডিট কার্ডের ইন্টারেস্ট রেট আনুমানিক গড়ে ১৮ থেকে ৩৫ শতাংশ পর্যন্ত হয়ে থাকে। একবার চিন্তা করুন, আপনি যদি ক্রেডিট কার্ড বিল পুরোপুরি পরিশোধ না করেন; তাহলে এক বছরে আপনার ১ লাখ টাকায় ১৮ থেকে ৩৫ হাজার টাকা আপনার ঋণের পরিমাণ বেড়ে যাবে। তাই যতদূর সম্ভব চেষ্টা করুন ক্রেডিট কার্ড এর লোন পরিশোধ করতে। তা না হলে আপনার ভবিষ্যৎ অবসর সঞ্চয় পরিকল্পনা ভেস্তে যেতে পারে।

সম্পত্তি বিক্রি করুন
আপনার যদি এমন কোন সম্পত্তি থাকে যেখান থেকে আপনার কোন ধরনের রিটার্ন আসে না অথবা ভবিষ্যতে সেখান থেকে রিটার্ন পাওয়ার তেমন কোনো সম্ভাবনা নেই, তাহলে আপনি সেই সম্পত্তি বিক্রি করে দিয়ে আপনার অবসর পরিকল্পনায় কাজে লাগান। উচ্চ সুদে দীর্ঘমেয়াদী প্রকল্পে বিনিয়োগ করলে একটা সময় পর একটা ভালো রিটার্ন পাবেন।

Recommended For You

About the Author: এডমিন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *